বজ্রপাতের সময় কি গাছের নিচে দাঁড়ানো যায়?

 বৃষ্টির সময় গাছ কতোটা নিরাপদ 

ফাঁকা মাঠ বা ফাঁকা জায়গায় আশ্রয় নেয়ার মত জায়গা থাকে না।মাঠে কাজ করতে গিয়ে অনেক জায়গায় বজ্রপাতে মানুষ ও  গরু ছাগল মারা যায়। প্রায় পত্র-পত্রিকাতে শোনা যায় বজ্রপাতে কৃষক মারা গেছে। মাঠে আশ্রয় নেয়ার মত কোন জায়গা না থাকায় অনেকে গাছের নিচে আশ্রয় নেয়।এখন প্রশ্ন হলো বৃষ্টির সময় গাছের নিচে আশ্রয় নেয়া কি নিরাপদ? বজ্রপাত হলে কিংবা মেঘ ডাকলে গাছ কি মানুষকে রক্ষা করতে পারে?  উত্তর হলো না।বজ্রপাতের সময় গাছের নিচে দাঁড়িয়ে থাকা মোটেও নিরাপদ নয়।গাছ বিদ্যুৎ সুপরিবাহী নয়।যেহেতু গাছ বড় ও চারিদিকে ছড়ানো থাকে তাই গাছের উপর বিদ্যুৎ পড়ে বেশি। একবার চিন্তা করুন যেখানে বাড়ি-ঘরে  ১২০ ভোল্ট ও ১৫ অ্যাম্পিয়ারের কারেন্ট থাকে সেখানে বজ্রপাতে ৩০০ মিলিয়ন ভোল্ট অর্থাৎ ৩০০০০০০০০ ভোল্ট ও ৩০০০০ অ্যাম্পিয়ার কারেন্ট থাকে।তো এই কারেন্টের ঝটকা কাছে লাগলে রেজিস্ট্যান্স তৈরি হয়।অর্থাৎ মাটিতে যেতে বাঁধা পায় ফলে গাছ উত্তপ্ত হয়ে উঠে।ফেঁটে যায়। আগুন ধরে যায়।তাই বৃষ্টিপাতের সময় গাছের নিচে দাঁড়ানো উচিত নয়। 


বজ্রপাতের সময় কি গাছের নিচে দাঁড়ানো যায়?


তাহলে বজ্রপাতের সময় কোথাও আশ্রয় নেয়া উচিত? 

১.অপেক্ষাকৃত নিচু জায়গায় বা গর্তে। 

২. যদি জঙ্গলে থাকেন তবে অনেকগুলো গাছের মধ্যে সবচেয়ে ছোট গাছের নিচে। 

৩. ঘর-বাড়ি অথবা কংক্রিটের শেডে।

৪. অন্যকোন আশ্রয় কেন্দ্র বানিয়ে। 


Blogger দ্বারা পরিচালিত.