দেবারাধনের সময়কালে হস্তমুদ্রার নিয়ম

 মুদ্রা কী? 

সাধারণত মুদ্রা বলতে টাকা-পয়সা, সোনার মুদ্রা রৌপ্য মুদ্রা, মোহর, মুদ্রণ ছাপ ইত্যাদি বোঝায়।তবে হিন্দু ধর্মশাস্ত্রে দেবারাধনের জন্য হাতে আঙ্গুলের বিভিন্ন মুদ্রা রয়েছে। ধ্যান বা আরাধনাকালে মুনি-ঋষিরা যেসকল হস্তমুদ্রা করে থাকেন সেগুলো নাম সচিত্র তুলে ধরা হলো।

ধ্যান সাধনায় হস্তমুদ্রার নাম ও প্রকৃতি 


অঙ্কুশমু্দ্রা কাকে বলে?

 ডান হাতের মধ্যমা সোজা করে তর্জনি অঙ্গুলের মধ্যপর্ব পর্যন্ত মধ্যমাতে সংযোগ করে এর অগ্রভগ সামান্য করাকে অঙ্কুশমুদ্রা বলে। ঋজ্বীঞ্চ মধ্যমাং ক্বত্বা তর্জ্জনীমধ্যপর্ব্বণি সংযোজ্যাকুঞ্চায়েৎ কিঞ্চিন্মুদ্রৈশাঙ্কুশ সং-জ্ঞিকা।

ধেনুমুদ্রা কাকে বলে?

ডান হাতের তর্জনী ও অনামিকা এবং বাম হাতে মধ্যমা ও কনিষ্ঠা, ডান হাতের মধ্যমা ও কনিষ্ঠা এবং বাম হাতের তর্জনী ও কনিষ্ঠা সংযোগ করাকে ধেনুমুদ্রা বলে।

নারাচমুদ্রা কাকে বলে?

বৃদ্ধাঙ্গুলির অগ্রভাগ তর্জনীর সাথে সাথে সংযোগ করে তর্জনী সোজা রেখে মধ্যমা,অনামিকা ও কনিষ্ঠা আঙ্গুল বাঁকা (মুষ্টি) করে তা হাতের তালুর সাথে সংযোগ স্থাপন।

কূর্ম্মমুদ্রা কাকে বলে?

বাম হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলি ও বাম হাতের তর্জনী ডান হাতের কনিষ্ঠা যোজনী করে ডান হাতের  বৃদ্ধাঙ্গুলি উঁচু করতে হবে। এবং মধ্যমা ও অনামিকা এবং বাম হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলি ও তর্জনীর মধ্য দিয়ে বাঁকা করতে হবে।এবং বাম হাতের মধ্যমা ও অনামিকা এবং কনিষ্ঠা ডান হাতের পৃষ্ঠে বা ক্রোড়ে বাঁকা করে রাখতে হবে।এবং কূর্ম্মেরমতন ডান হাত করতে হবে।

অবগুণ্ঠন মুদ্রা কাকে বলে?

ডান হাত মুঠো করে তর্জনী আঙ্গুল সোজা এবং অধমুখো করে দক্ষিণাবর্তে তর্জনী একবার ঘুরাতে হবে।


গালিনী মুদ্রা কাকে বলে?

ডানহাতের উপর বাম হাত রেখে বাম হাতের কনিষ্ঠা ও বৃদ্ধাঙ্গুলি এবং ডানা হাতের কনিষ্ঠা ও বৃদ্ধাঙ্গুলি সংযোগ করতে হবে। ডান ও বাম হাতের অনামিকা, তর্জনী, ও মধ্যমাকে পরস্পরে সংযোগ করতে হবে।প্রতিটি আঙ্গুল আলাদা করে পরস্পরের মধ্যে ফাঁক রাখতে হবে।(চিত্র দেখুন) 


মৎস্যমুদ্রা কাকে বলে?

ডান হাতে পৃষ্ঠদেশ ও বাম হাতের তল রেখে সমভাবে সংযোগ করতে হবে।আর উভয় হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলি বিলক্ষণরুপে রাখতে হবে। চিত্র  ৭ দেখুন। 


চক্রমুদ্রা কাকে বলে?

উভয় হাতে মুঠি করে উভয় হতে বৃদ্ধাঙ্গুলি কনিষ্ঠ আঙুলের সাথে সংযোগ করতে হবে।হাত ফাঁকা থাকলে চলবে না।

শঙ্খমুদ্রা কাকে বলে?

ডান হাত দিয়ে বাম হাতের বৃদ্ধাঙ্গুল মুঠো করে ধরে বাম হাতের অপর চার আঙ্গুল ডান হাতের পৃষ্ঠের সঙ্গে লাগিয়ে উঁচু করতে হবে। ডান হাতে বৃদ্ধাঙ্গুলি সোজা করে বাম হাতের আঙ্গুলগুলোর অগ্রভাগে অগ্রভাগে সংযোগ করতে হবে।

গদামুদ্রা কাকে বলে?

উভয় হাত মুখোমুখি করে সকল আঙ্গুল গ্রথিত করবে।উভয় হাতের মধ্যমাদ্বয় সংলগ্ন করে সোজা করে উঁচু করতে হবে।

পদ্মমুদ্রা কাকে বলে?

দুই হাত মুখোমুখি করে আঙ্গুলগুলো  উঁচু করে খানিকটা সংকোচিত করতে হবে এবং দুই হাতে তালুর নিচ একসাথে সংযোগ করতে হবে। 

লেলিহা মুদ্রা কাকে বলে? 

ডান হাতের তর্জনী, মধ্যমা,অনামিকা সমান করে অধোমুখ  করে অনামিকার অগ্রভাগের সাথা বৃদ্ধাঙ্গুলির সংযোগ করতে হবে। কনিষ্ঠা আঙ্গুল সোজা রাখতে হবে। 

আবাহনীমুদ্রা কাকে বলে?

দুই হাত চিতরুপে অঞ্জলি করে বৃদ্ধাঙ্গুলিদ্বয় অনামিকা আঙ্গুলদ্বয়ের গোড়ায় সংযোগ কারাকে আবাহনীমুদ্রা বলে।

সন্নিধাপনী মুদ্রা কাকে বলে? 

দুই হাত মুঠো করে পরস্পরের সাথে সংযোগ করতে হবে।আর বৃদ্ধাঙ্গুলিদ্বয় উন্নত করে মুঠোর সাথে মেলাতে হবে।

সংবোধিনীমুদ্রা কাকে বলে? 

দুই হাত মুঠো করে বৃদ্ধাঙ্গুলিদ্বয় মুষ্টির মধ্যে প্রবেশ করানো।

সম্মুখীকরণীমুদ্রা কাকে বলে? 

উত্তর: দুই হাত মুঠো করে পরস্পরের সাথে সংযোগ করতে হবে।

যোনীমুদ্রা কাকে বলে?

কনিষ্ঠ দ্বারা কনিষ্ঠা ও তর্জনী দ্বারা অনামিকা বন্ধ করবে এবং অনামিকাদ্বয় উঁচু করবে।বৃদ্ধাঙ্গুলিদ্বয় মধ্যমার অগ্রভাগ পর্যন্ত সোজা করতে হবে।

ত্রিশূল মুদ্রা কাকে বলে? 

কনিষ্ঠা ও বৃদ্ধাঙ্গুলি সংযোগ করে অপর তিন আঙ্গুল কিছুটা ফাঁক করে সোজা করা।

অভয়মুদ্রা কাকে বলে? 

বাম হাত ও আঙুল সোজা পরস্পরের সাথে সংযোগ করে সোজা করে উঁচু করা

মৃগমুদ্রা কাকে বলে? 

বৃদ্ধাঙ্গুলি ও অনামিকা মিলিত করে অনিমাকের সহিত সংযুক্ত করা, তর্জনী ও কনিষ্ঠা সোজা রাখা।

স্থাপনীমুদ্রা কাকে বলে? 

আবাহনী মুদ্রা আধোমুখ করা।


দেবারাধনের সময়কালে হস্তমুদ্রার নিয়ম


Blogger দ্বারা পরিচালিত.